ভ্রমণের সময় বমি বমি ভাব বা অসুস্থ বোধ

সফর বা ভ্রমণের সময় বাস, গাড়ি বা লঞ্চে অসুস্থ বোধ করেন, এমন মানুষের অভাব নেই। বমি বমি ভাব হয়, মাথা ঘোরায়, বুক ধড়ফড় করে, ক্লান্ত লাগে। বমি করেও ফেলেন অনেকে। গরমের সময় সমস্যাটা আরও বাড়ে। জেনে নিন এ সমস্যা থেকে মুক্তির কয়েকটি উপায়।

১. বমি বমি ভাবের কারণে অনেকেই খালি পেটে যাত্রা শুরু করেন, যা একেবারেই অনুচিত। খালি পেটে যাত্রা বমি বমি ভাব, ক্লান্তি ও দুর্বলতাকে বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়। অবশ্যই কিছু একটা খেয়ে যাত্রা শুরু করুন। তবে সেটা যেন হালকা কোন খাবার হয়। কোন গুরুপাক খাবার খাবেন না।

২. সাথে এক বোতল পানি রাখুন। একটু পর পর সামান্য এক ঢোক পানি পান করুন। এটা আপনার মনযোগ সরিয়ে রাখবে ও ভালো অনুভব করতে সাহায্য করবে।

৩. লেমন বা অরেঞ্জ ফ্লেভারের ছোট ছোট লজেন্স রাখতে পারেন সাথে। তেঁতুলের আচারও মন্দ নয়। খারাপ লাগলেই একটু মুখে দেবেন, ভালো লাগবে।

৪. সবচাইতে সেরা উপায় হচ্ছে ঘুমিয়ে যাওয়া। ঘুমিয়ে গেলে আপনার সময়টা দ্রুত কেটে যাবে এবং অসুস্থ বোধ করবেন না।

৫. কেন এমন হয়, তাঁর কারণটা খুঁজে বের করুন। অনেকের যেমন বেশী ঝাঁকুনি হলে খারাপ লাগে। অনেকের আবার পেছনের সিটে বসলে অসুস্থ বোধ করেন। অনেকের সমস্যা হয় বদ্ধ পরিবেশে। অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণটা বোঝার চেষ্টা করুন এবং সেটা দূর করুন। অনেকটাই ভালো বোধ করবেন। যেমন আপনার পাশের সীটের ব্যক্তিটি যদি হঠাৎ বমি করতে শুরু করে আপনি অস্বস্তিতে পড়ে যাবেন। অনেকেই আবার একজনকে বমি করতে দেখলেই নিজেও বমি করা শুরু করে দেয়। এরকম সমস্যা আপনার থাকলে পাশের ব্যক্তির কাছ থেকে জেনে নিন ভ্রমণে তার এই বমি করার ধাত আছে কি না।

৬. বিশুদ্ধ বাতাসে থাকুন। বাস কিংবা গাড়িতে হলে জানালা খুলে দিন। লঞ্চে হলে ডেকে ঘোরাঘুরি করুন। শরীরকে তাজা অক্সিজেন পেতে দিন, অক্সিজেন আপনার শরীরকে তরতাজা এবং ফ্রেশ রাখবে।

৭. শেষ অপশন হিসাবে ওষুধ তো রয়েছেই। ফার্মেসিতে গেলেই ট্র্যাভেল সিকনেস দূর করার কিছু ওষুধ পাবেন। আমাদের দেশে যেমন এভোমিন বেশ জনপ্রিয়। তবে এক সাথে একটির বেশী ওষুধ খাবেন না, এতে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে।

Please follow and like us:
0

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA


error: Content is protected !!