ক্রাবি-থাইল্যান্ডের আকর্ষণীয় পর্যটন গন্তব্য

স্বল্প সময়ে ও স্বল্প খরচে ছুটি কাটাতে চাইলে থাইল্যান্ডের ক্রাবি একটি ভালো গন্তব্য। এখানে প্রতিবছর সাড়ে পাঁচ লাখের বেশি দেশি-বিদেশি ভ্রমণকারী বেড়াতে আসেন।  ক্রাবি ভ্রমণের সবচেয়ে ভালো সময় অক্টোবর থেকে মে মাস। এ সময় ক্রাবিকে পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করার সুযোগ থাকে। তাই পর্যটকরা তখন বেশি আসেন।
ক্রাবির অন্যতম প্রধান আকর্ষণ পরিবেশবান্ধব পর্যটন, এলাকার বিভিন্ন সমুদ্র সৈকত ও বিভিন্ন আইল্যান্ড।  তার মধ্যে ফিফি আইল্যান্ডের রয়েছে বিশ্বজুড়া পরিচিতি। এখানে উপভোগ করা যাবে সমুদ্র ও বিভিন্ন দ্বীপের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। আন্দামান সমুদ্রে স্পিডবোটে চলার দুঃসাহসী অভিজ্ঞতা নেয়ার পর চলে যেতে পারেন ক্রাবি লেকে প্যাডেল বোট চালানো উপভোগ করতে। ছোট প্যাডেল বোটে করে ক্রাবি লেকে ভেসে যাওয়ার সময় হালকা শীতল হাওয়া আপনাকে স্পর্শ করবে, লেকের পাড় ঘেঁষে যেতে যেতে দেখা মিলবে বুনো বানর লেকের ধারে খাবারের খোঁজে সদলবলে বেরিয়ে চেঁচামেচি করছে।


এছাড়াও ক্রাবির ‘পাকা আর্ট লেন’ যেখানে সন্ধ্যার পর দেখা যাবে ক্রাবির ঐতিহ্যবাহী নাচ আর গানের বর্ণিল পরিবেশনা।  ক্রাবি মিউনিসিপালটির আন্দামান কালচারাল সেন্টারে বছরজুড়ে চলে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক চিত্রশিল্পীদের ছবির প্রদর্শনী।  প্রদর্শনী দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে গেলে হরেক রকম ফলের জুস খেয়ে প্রাণ জুড়িয়ে নিতে পারেন। ভ্রমণের ফাঁকে সেখানে সৈকতের পাশের রেস্তোরাঁয় বসে সেরে নেওয়া যাবে দুপুর কিংবা রাতের খাবার।  ক্রাবির বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় পছন্দের খাবারও মিলবে সহজেই।  এখানে বিভিন্ন দেশ থেকে বিভিন্ন ধর্মের পর্যটকরা বেড়াতে আসেন।  তাই পর্যটকদের ধর্মীয় অনুভূতিকে গুরুত্ব দেয়ার জন্য রয়েছে স্থানীয়দের নানা রকম প্রচেষ্টা ।  রেস্তোরাঁয় বিভিন্ন ধর্মের মানুষের খাবারের বিধি-নিষেধও গুরুত্ব দেওয়া হয়।  যেমন অনেকে গরুর মাংস খান, তাদের জন্য রেষ্টুরেন্টের একপাশে বসার ব্যবস্থা।  আবার কেউ তা খান না ধর্মীয় কারণেই।  তারা মন চাইলে বসতে পারেন রেস্টুরেন্টের অন্য কোথাও।

কিভাবে যাবেন
বাংলাদেশ থেকে উড়োজাহাজে ২ ঘণ্টায় পৌঁছে যাওয়া যায় ব্যাংককের সুবর্ণভূমি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে। তারপর উড়োজাহাজের কোনো এক অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে এক ঘণ্টার আগেই পৌঁছে যাওয়া যায় ক্রাবি। ঢাকা থেকে ব্যাংকক আসার পর সেখান থেকে ক্রাবি যেতে প্রতিদিন একাধিক ফ্লাইট রয়েছে।
বাংলাদেশ থেকে আগে কোনো রিসোর্ট বা হোটেল বুকিং দিয়ে রাখলে ভ্রমণের পর সোজা উঠে যাওয়া যাবে সেখানে। এরপর কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে ক্রাবি ভ্রমণে বেরিয়ে যান।

Please follow and like us:
0

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA


error: Content is protected !!